ব্লগ বা ওয়েবসাইট কি? কিভাবে ফ্রি ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করবেন? [Free Blog]

অনেকেই এখন অনলাইনে অর্থোপার্জনের উপায় সন্ধান করে। অনলাইনে অর্থোপার্জন করারা বেশির ভাগ মানুষ ব্লগ বা ওয়েবসাইট কে বেছে নেয়। ব্লগ দিয়ে ইনকাম করা তুলনামূলক সহজ মনে করে সবাই তাই ব্লগিংকে বেছে নেয়।

ব্লগিং অর্থোপার্জনের সত্যিকারের একটি ভালো মাধ্যম। আমি এখন প্রায় ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে ব্লগিং করছি এবং আমি বলতে পারি আপনার আগ্রহ থাকে এবং কঠোর পরিশ্রমের করেন তাহলে অবশ্যই ইনশাআল্লাহ আপনি ও ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

একটি ব্লগ আপনাকে কেবল নিজেকে প্রকাশ করতে, আপনার দক্ষতা ভাগ করে নেওয়ার জন্য বা ফলোয়ার তৈরি করার অনুমতি দেয় না পাশাপাশি আপনি আপনার ব্লগের মাধ্যমে একটি ভাল ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি যদি ব্লগিংয়ে নতুন হয়ে থাকেন এবং কীভাবে ফ্রি ওয়েবসাইট বা ব্লগ তৈরী করবেন এবং ব্লগ থেকে ইনকাম করবেন তা ভাবছেন আপনি বিস্তারিত সবকিছু এই পোস্টে জানতে পারবেন।

এই পোস্টে, আমি আপনাকে ব্লগার.কম (গুগলের নিজস্ব ফ্রি ব্লগিং প্ল্যাটফর্ম) এ কীভাবে একটি ব্লগ ওয়েবসাইট বানাতে পারবেন তা নিয়ে আলোচনা করবো। তার আগে একটু আলোচনা করে নেই আপনার মনে হয়তো যাতে কোনো প্রকার প্রশ্ন না থাকে।

ব্লগ কি আবার ওয়েবসাইট কি ?

অনেকেই কনফিউশনে থাকেন যে ওয়েবসাইট করবেন নাকি ব্লগ করবেন। কিন্তু এমনটার কারন হচ্ছে এই দুইটার মধ্যে পার্থক্য না বোঝা। আসলে ব্লগ আর ওয়েবসাইটের মধ্যে খুব বেশি পার্থক্য নেই।

ব্লগ হল এক ধরণের ওয়েবসাইট। পার্থক্যটি হল ব্লগ যেকোনো সময় আপডেট করা হয় এবং ওয়েবসাইটগুলি বেশি আপডেট করা হয় না। একটি ব্লগ নিজস্ব ওয়েবসাইটের একটি অংশ হতে পারে। ধরুন আপনার একটি ওয়েবসাইট আছে তার অনেক গুলো পেইজ ও আছে। তার মধ্যে একটা পেজ হলো ব্লগ।

ব্লগ হচ্ছে এক ধরনের ওয়েবসাইট যেখানে লেখক তার লিখা পাবলিশ করতে পারে। আর সকল ব্লগকেই এক একটি ওয়েবসাইট বলা চলে। আর যেহেতু আমাদের মূল টার্গেট বিজ্ঞাপন থেকে আয় করা তাই আমার মতে ব্লগ সাইট বানানোই উত্তম কারন, এখানে আপনি নিয়মিত লিখতে পারবেন।

যেখানে আপনি আপনার ডাইয়েরির মতো লেখালেখি করতে পারবেন যা ওয়েবসাইট এর অংশ। যেমন আমার ওয়েবসাইটি একটি ব্লগ ওয়েবসাইট। আমি আপনাদের জন্য বিভিন্ন প্রকার টেক পোস্ট পাবলিশ করি।

ব্লগার.কম কি? :

ব্লগার.কম গুগলের নিজস্ব একটি বিনামূল্যে ব্লগিং সাইট বা প্ল্যাটফর্ম যেখানে আপনি .blogspot.com সাবডোমেন (যেমন, yourdreamblog.blogspot.com) দিয়ে আপনার ডোমেইন হিসাবে ব্যবহার করে একটি ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন।

অথবা আপনি যদি চান টপ লেভেল ডোমেইন আপনার ব্লগ এর সাথে যোগ করতে তাও করতে পারবেন।(উদাহরণস্বরূপ, www.yourdreamblog.com)। ডোমেইন কি জানতে এই পোস্টটি পড়তে পারেন।

ব্লগার.কম এ একটি ব্লগ শুরু করতে পারবেন ফ্রি ওয়েবসাইট এবং ব্লগ লঞ্চ করা সহজ মাত্র কয়েক মিনিট এর ব্যাপার । প্ল্যাটফর্মটি গুগলের মালিকানাধীন, সুতরাং আপনার সেই বিশ্বাস এবং বিশ্বাসযোগ্যতা রয়েছে।

যদিও ওয়ার্ডপ্রেস ডটকম, ওয়েবলি, টাম্বলার, ব্লগার.কম এর মতো অনেকগুলি বিনামূল্যে ব্লগিং প্ল্যাটফর্ম রয়েছে তবে বিশ্বাসযোগ্যতা এবং ইনকাম এর জন্য সুবিধার দিক দিয়ে ফ্রীতে ব্লগার.কম এগিয়ে । নীচের ধাপে ধাপে দেয়া আছে আপনি কীভাবে নিজের ব্লগটি শুরু করতে পারেন :

কিভাবে Blogger.com এ ফ্রি ওয়েবসাইট বা ব্লগ শুরু করবেন :

এখন আপনি যে জানেন যে ব্লগার.কম এ ব্লগ শুরু করা কেন উপকারী, তাই পরবর্তী ধাপগুলো ফলো করুন। আশা করি সবাই সহজে বুঝতে পারবেন। তাহলে চলুন শুরু করা যাক :

  • ফ্রি ওয়েবসাইট বা ব্লগার অ্যাকাউন্ট তৈরি :
  • ব্লগের নাম এবং ব্লগ তৈরী :
  • ব্লগ এর important setting :
  • Theme select এবং layout editing :
  • Blog Post Publish :
  • ফ্রি ওয়েবসাইট বা ব্লগ সাইট থেকে ইনকাম :

ফ্রি ওয়েবসাইট ব্লগার অ্যাকাউন্ট তৈরি :

প্রথমে শুরু করার জন্য, ব্লগার.কম এ আপনাকে ভিজিট করতে হবে। তার পর আপনি দেখতে পারবেন যে Create Your Blog Option রয়েছে। যেহেতু ব্লগার ডট কম গুগলের একটি পণ্য তাই আপনাকে আপনার পছন্দসই জিমেইল অ্যাকাউন্টে সাইন ইন করে সহজেই একটি ফ্রি ব্লগ অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।

ব্লগের নাম এবং ব্লগ তৈরী :

  • Choose an account ( Gmail Account )

Choose a name for your ব্লগ আপনার ব্লগ এর নাম নির্বাচন করুন। আপনি আপনার ব্লগ এর নাম নির্বাচন করুন যেই নামে আপনি আপনার ওয়েবসাইট তৈরী করতে চান।

  • Choose a name for your :

তার পর আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের URL বা website address সিলেক্ট করুন।

  • Choose a URL for your blog :

URLটি টাইপ করার পর যদি লেখা উঠে Sorry, this blog address is not available তাহলে আপনি এই URL টি আপনার ব্লগের জন্য নির্বাচন করতে পারবেন না। অথবা যদি আপনার URL টি টাইপ করার পর নিচে this blog address is available লেখা উঠে তাহলে Next এ ক্লিক করুন।

  • Confirm your display name :

Confirm your display name যা আপনার ব্লগে যখন কেউ ভিজিট করবে তখন সবার উপরে আপনার ব্লগের নাম যা দেখতে চান। তা দিয়ে Finish এ ক্লিক করুন।

আপনার ব্লগ বলতে গেলে প্রায় প্রস্তুত। যে কেউ চাইলে আপনার ব্লগের এর মাদ্ধমে আপনার ব্লগে ভিজিট করতে পারবে। এখন পালা আপনার ব্লগের যাবতীয় কাজের যা আমি আগে উল্লেখ করেছি।

ব্লগ এর important setting :

আপনি আপনার ব্লগটি তৈরি করার পরে আরো একটি প্রদান কাজ গুগলে অনুসন্ধানের জন্য সার্চ ইঞ্জিনে আপনার সাইটকে যুক্ত করতে হবে। ব্লগার এ লগইন দেয়ার পর বাম পাশের অনেকগুলো অপশন দেখতে পারবেন তার মধ্যে এ ক্লিক করুন।

“সেটিংস” এর মধ্যে আরো কতগুলো অপসন দেখতে পারবেন যা সার্চ ইঞ্জিনে রাঙ্ক এর জন্য গুরুত্বপূণ। নীচের বিস্তারিত সব অপশন নিয়ে আলোচনা করা হবে পড়তে থাকুন আর্টিকেলটি :

  • Basic :

প্রথমে চলে আছে basic option এই অপশনে গুরুত্বপূর্ণ setting এর মধ্যে  রয়েছে description। এইখানে আপনি আপনার ব্লগ কি related মানে আপনার ব্লগ সম্পর্কে কিছু ওয়ার্ড এর লিখে দিন। এইখানে একটা কাজ করলে পারেন।

পরে একটা option  আসবে। meta tag যেখানে আপনাকে ২৫০ ওয়ার্ড এর seo জন্য আপনার ব্লগ সম্পর্কে লিখতে হবে। তাই একই লেখা দুই জায়গায় দিয়ে দিতে পারেন। এই  নিচে বিস্তারিত দেয়া আছে meta tag কি।

  • Posts :

এখন post option এ আপনি আপনার ওয়েবসাইটের প্রতি পেইজে কতটা করে পোস্ট রাখতে চান। আমি ১০ টা দিয়েছি আপনি ইচ্ছামত দিতে পারেন তবে ১০ টার বেশি না দেওয়া ভালো। সাইট এর লোড টাইম অনেক বেড়ে যায়।

  • Comments :

Comments section এ আপনার যদি কিছু change করতে চান তাহলে comment moderation এ পরিবর্তন করতে পারেন। এই option এর কাজ হলো কেউ যদি আপনার ব্লগে comments করে তাহলে আপনার approved ছাড়া যদি চান comment করতে পারবে তাহলে never দিয়ে রাখুন।

  • Meta Tags :

এই section টা গুরুত্বপূর্ণ কারণ আপনার সাইটকে rank এ সহযোগিতা করে। যেই keyword এ আপনি আপনার ওয়েবসাইট কে rank করতে চান সেই keyword যোগ করতে পারেন।

  • Custom Redirect :

এই option টি সাধারণত তখন ব্যবহার করবেন যখন আপনার কোনো url কাজ করে না। আপনি চান কেউ যখন এই url এ ক্লিক করবে তখন যাতে অন্য পেইজ দেখে।

তখন custom redirect এ আপনার error পেইজ বা অন্য কোনো পেইজ যেই পেইজকে আপনি চান redirect করে অন্য পেইজে নিতে। তখন from ওই পেইজের url এবং to তে গন্তব্য url। আশা করি বুঝতে পেরেছেন এখন এই option এ কিছু না করলে ও চলবে। আপনারা যদি চান তাহলে comment করুন আমি redirect নিয়ে আলাদা একটি পোস্ট নিয়ে আসবো।

ব্লগার theme and layout edit :

এখন, এই option এ, আমরা আমাদের ব্লগার টেমপ্লেট বা লেআউট সম্পাদনা করব। কিভাবে আপি আপনার ব্লগকে আরো সুন্দর করতে পারবেন তা নিয়ে আলোচনা করব।

ব্লগারের ইতোমধ্যে বেশ কিছু ফ্রি টেমপ্লেট আছে যা simple এবং easy । কিন্তু, আপনি যদি একটি ভিন্ন blog template চান তাহলে আপনি সহজে Google এ অনুসন্ধান করার মাধ্যমে সেগুলি ডাউনলোড করতে পারেন।

যাইহোক, এই পোস্টে আমি একটি theme দিয়ে customize করবো আপনাদের যা ইচ্ছা সেই অনুযায়ী করতে পারবেন। আপনি চাইলে আমি যাই থিম ব্যবহার করেছি এইটা দিয়ে ও করতে পারবেন আমি ডাউনলোড লিংক দিয়ে দিবো।

আপনাদের সুবিধার জন্য আমি theme customize এর একটি ভিডিও তৈরী করেছি। এই ভিডিওটি দেখলে খুব সহজে theme edit and customize করতে পারবেন। আর একটি Youtube channel create করেছি সাইট এর নামে আপনি চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করতে পারেন।

আপনাদের ভালো সাড়া পেলে ইনশাল্লাহ আমি আপনাদের জন্য ভিডিও টিউটোরিয়াল তৈরী করবো। তাই সাবস্ক্রাইব করুন। আর আপনারা যদি চান এই ভিডিওটি মোবাইল দিয়ে তৈরী করে আপলোড দিতে তাহলে অবশ্যই আপলোড করবো। তাই দেরি না করে কমেন্ট করুন।

Theme Download Here :

Blog Post Publish :

আপনি যদি বিভ্রান্ত হয়ে থাকেন পোস্ট এবং পেইজ নিয়ে। তাহলে বলে রাখি আক্ষরিক অর্থে একই হয় তবে পেইজগুলো সাধারণত খুব কমই আপডেট করা হয়। এর অর্থ আপনি সাধারণত আপনি আপনার পেইজে contact us, about us and privacy policy পেইজ তৈরী করে থাকেন।

Note : ব্লগারে, আপনি unlimited post করতে পারবেন এবং মাত্র ২০টি পেইজ তৈরি করতে পারেন। সুতরাং আপনার পেইজগুলো সঠিকভাবে ব্যবহার করুন।

এখন আপনার পোস্ট লেখার সময় এখন আপনি আপনার ব্লগে পোস্ট লেখেতে হবে যাতে করে লোকেরা পড়তে আসে। এগুলি এমন বিষয় হতে পারে যার মধ্যে আপনার দক্ষতা রয়েছে বা কীওয়ার্ডগু যা আপনি গুগলে র‌্যাঙ্ক করতে চান।

একটি পোস্ট লিখতে, আপনার ব্লগার ড্যাশবোর্ডে যান এবং “New Post” এ ক্লিক করুন ।

blog post

তারপরে আপনি আপনার পোস্টের এডিটের জন্য অন্য একটি পেইজে চলে আসবেন যেখানে আপনি নিজের ব্লগ পোস্টটি লিখতে পারেন, একটি শিরোনাম দিতে পারেন, আপনার ব্লগের অন্যান্য পোস্টগুলোকে লিংক করতে পারেন তাছাড়া পোস্টে image যুক্ত করতে পারেন।

তবে আপনি উন্নত মানের এসইও এবং র‌্যাঙ্কিংয়ের জন্য আপনার blogspot এর জন্য কিছু টিপস দেওয়া হল। আপনি আপনার ব্লগটি ভালভাৱে চালু করার আগে বা বন্ধুদের সাথে শেয়ার করার আগে কমপক্ষে ১০টি কোয়ালিটি পোষ্ট লেখার চেষ্টা করুন ।

একটি সুন্দর এবং গুছানো ব্লগ এবং ব্লগ পোস্ট আপনার ভিজিটরের কাছে আপনার ব্লগটি কেমন হতে চলেছে এবং তারা এটি থেকে কী আশা করতে পারে সে সম্পর্কে যথেষ্ট ধারণা দেবে। আপনি যদি চান কিভাবে একটি পোস্ট লিখতে হয় সেই সম্পর্কিত একটি ভিডিও নিয়ে আসতে তাহলে কমেন্ট করুন।

তাছাড়া যদি চান SEO সম্পর্কিত পোস্ট কিভাবে লেখবেন তাহলে কমেন্ট করুন পোস্ট করবো।

ফ্রি ওয়েবসাইট বা ব্লগ সাইট থেকে ইনকাম :

টাইটেলে এ যেহেতু দেখেছেন যে ইনকাম করা যায় তাও আবার ফ্রি ওয়েবসাইট থেকে। অনেকে হয়তো এইটা দেখে ক্লিক করেছেন। জী , ব্লগার এর ফ্রি ব্লগস্পট থেকে আপনি ইনকাম করতে পারবেন। আপনি যদি কষ্ট করেন হোক সেটা ফ্রি বা পেইড আপনার কাজের যদি ফল না পান তাহলে কেমন না।

কিভাবে Adsense সাহায্যে আপনার ব্লগার ব্লগকে monetize করতে পারবেন তাহলে দেখা যাক।

Monetize Your blog with Adsense :

Blogger Earnings

আপনি আপনার ব্লগে একটি Earnings Option দেখবেন। আপনি Google Adsense এর মাদ্ধমে আপনার ব্লগকে করতে পারবেন। সাধারণত, অ্যাডসেন্সের যোগ্যতা অর্জনের জন্য ব্লগস্পট ব্লগগুলি কমপক্ষে ৬ মাস বয়সী হওয়া উচিত। ।

আমার তৈরী করা ফ্রি ওয়েবসাইট ব্লগ সাইটটি দেখতে পারেন – www.bdtechbanglatips.blogspot.com

আরো পড়ুন : ডোমেইন এবং হোস্টিং কিভাবে কিনব? [How to buy Domain and Hosting?]

Blogger.com নাকি WordPress ( Free vs Paid ) :

আপনি একটি কাস্টম ডোমেন প্রথম থেকেই পাবেন বা কিনতে হবে।

ওয়ার্ডপ্রেস একটি professional প্ল্যাটফর্ম।

আপনি যে কোনও কিছুর জন্য এবং যা সহায়তা দরকার তার জন্য টিউটোরিয়াল এবং কোর্সগুলি সহজে পেয়ে যাবেন। WordPress community active।

এখানে হাজার হাজার ফ্রি এবং পেইড ওয়ার্ডপ্রেস থিম রয়েছে। তাছাড়া ওয়ার্ডপ্রেস এ ফ্রি প্লাগিন রয়েছে যা দিয়ে শীতের যেকোনো কিছু পরিবর্তন করতে পারবেন কোনো প্রকার কোডিং জ্ঞান ছাড়া।

অনেকগুলি ফ্রী এবং অর্থের বিনিময়ে এসইও প্লাগইন রয়েছে যা আপনার সাইটের পোস্ট গুগলে সার্চ সম্ভাবনা বাড়াতে সহায়তা করে।

ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করার জন্য আপনার একটি ওয়েব হোস্টের প্রয়োজন। আপনি যদি সবে শুরু করে থাকেন তবে এই পোস্টটি দেখতে পারেন। কিভাবে ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনবেন ?

WordPress এ Blogspot এর মতো এত সময় অপেক্ষা করার প্রয়োজন নেই। আপনার WordPress blog এ যদি ১০-১৫ টা quality post পোস্ট এবং Adsense এ apply এর জন্য যে সকল requirements প্রয়োজন তা complete করতে পারলে apply করতে পারবেন।

আপনার ব্লগের ইউআরএল ব্লগস্পট.কম এ শেষ হবে। তবে আপনি চাইলে একটি কাস্টম ডোমেন কিনতে পারেন। যার দাম বছরে ৭০০-৮০০ টাকা হবে।

আপনি যদি একটি সাধারণ ব্লগ তৈরি করতে চান তাহলে ব্যবহার করা সহজ এবং প্রথম যদি ব্লগগিং শুরু করতে চান তাহলে ব্লগারে কাজ করতে পারেন।

আপনাকে আপনার ব্লগটি উন্নত করতে এবং বৃদ্ধি করতে সহায়তা করার মতো তেমন বেশি টিউটোরিয়াল নেই। কারণ বেশিরভাগ ব্লগার WordPress এ কাজ করে।

খুব সীমিত কাস্টমাইজেশন এবং টেম্পলেট। পরিবর্তনগুলি করার জন্য html এবং css জ্ঞান প্রয়োজন এবং জিনিসগুলি গণ্ডগোল লেগে যেতে পারে।

ব্লগার SEO এর জন্য কোনও সহায়তা দেয় না। সর্বোপরি, একটি দুর্বল কোডযুক্ত থিম আপনাকে আপনার অজান্তে SEO ক্ষতি করতে পারে। আমার মতে এটা একটা ব্লগার এর জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

ফ্রী

আপনার ব্লগ এ Adsense এর মাধ্যমে monetize করার জন্য প্রায় ৬ মাস এর মতো অপেক্ষা করতে হয়।

উপসংহার :

যদি আপনি একদম blogging ফিল্ডে নতুন হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই blogger এর সাথে যেতে পারেন। আর যদি আগেই আপনি এর সম্পর্কে জেনে থাকুন তাহলে কিছু টাকা খরচ করে হলেও wordpress এ চেষ্টা করুন। আমি আমার প্রথম ব্লগ তৈরী করি wordpress এ। তবে সময় নষ্ট না করার থেকে wordpress এ কাজ করা ভালো।

আপনি যদি শখের বসে আপনার নিজের সাইট তৈরী করতে চান অথবা আরো জেনে blogging এ কাজ করতে চান তাহলে আমি বলবো blogger এ কাজ করতে থাকুন। তাছাড়া আপনার ব্লগার সাইট এ যদি ভালো পরিমান ট্রাফিক আসে। আপনি চাইলে পরে blogspot site কে wordpress এ migrate করতে পারবেন।

সুতরাং, এই পোস্টের মাধ্যমে আপনি ব্লগার.কম এ একটি ফ্রিতে ব্লগ তৈরি করতে পারবেন। আশা করি আপনি নিজের বিনামূল্যে ব্লগ শুরু করেছেন, ব্লগিংয়ের প্রথম অভিজ্ঞতা অর্জন করবেন এবং আপনার আর্থিক স্বাধীনতার জন্য কিছু অর্থ উপার্জন করবেন।

এর পরে, আপনি নিজের ব্লগটি আরও ভালোভাবে control করতে এবং এর সম্ভবনা বৃদ্ধি পেতে স্ব-হোস্টেড ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগে আপনার ব্লগটিকে যে কোনও সময় মাইগ্রেট করতে পারেন।

সম্পন্ন পোস্টটি কেমন লেগেছে কমেন্ট করে জানাবেন। আরো অনেক পোস্ট এই সাইটে পাবলিশ হবে তাই সাইটের সাথেই থাকুন। আর Youtube channel টি কিন্তু subscribe করতে ভুলবেন না।

People Alos Search : ব্লগ সাইট খোলার নিয়ম, ফ্রি ওয়েবসাইট খোলার নিয়ম, কিভাবে ব্লগ সাইট বানাব, কিভাবে ফ্রি ওয়েবসাইট বানানো যায়, ব্লগ তৈরি করে আয়, বাংলা ব্লগ সাইট, ব্লগ থেকে কিভাবে আয় করা যায়, ব্লগ সাইট তৈরি, ফ্রি ওয়েবসাইট

Leave a Comment